মোটা হওয়ার সহজ উপায় জেনে নিন। প্রাকৃতিক ভাবে মোটা হওয়ার সহজ টিপস।

মোটা হওয়ার সহজ উপায় জেনে নিন প্রাকৃতিক ভাবে মোটা হওয়ার সহজ টিপস।

 

মোটা হওয়ার সহজ উপায় জেনে নিন। প্রাকৃতিক ভাবে মোটা হওয়ার সহজ টিপস।

 

হ্যালো বন্ধুরা Bangla Topics ব্লগে আপনাকে স্বাগতম আশা করি সবাই ভালো আছেন। আজকের এই পোস্ট থেকে মোটা হওয়ার সহজ উপায় জেনে নিন। প্রাকৃতিক ভাবে মোটা হওয়ার সহজ টিপস জেনে নিন।

 

আমাদের মাঝে এমন অনেক লোক দেখতে পাবেন যে, যারা সময়মতো এবং স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খায় কিন্তু মোটা হচ্ছে না। আবার অনেক লোক আছে যারা অল্প করে খেলে
ও বেশি মোটা হয়ে যায়।  বাংলা একটি প্রবাদ আছে “স্বাস্থ্যই সম্পদ” সময়মতো না খাবার খাওয়ার কারণে স্বাস্থ্যের উন্নতি হচ্ছে না। যারা স্বাস্থ্যহীনতায় ভুগছেন তারা অনেকেই মোটা হওয়ার জন্য অনেক কিছু চেষ্টা করছেন এবং মোটা হওয়ার ট্যাবলেট
খাচ্ছেন তবে একটি বিষয় খেয়াল রাখবেন অতিরিক্ত ওজন শরীরের জন্য ভালো না। মোটা হওয়ার জন্য সর্বপ্রথম একটি বিষয়ে মনোযোগ দিতে হবে আপনি আগে যে পরিমাণ খাবার গ্রহণ করতেন এর থেকে একটু বেশি খাবার খাবেন। বেশি বেশি খাবার খাবার খাওয়ার অভ্যাস তৈরি করতে হবে। অনেক সময় আমাদের মুখে রুচি থাকে না। তাই অনেকে মুখে রুচি বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন ধরনের ঔষধ সেবন করে থাকেন। এটা একদম ঠিক নয়। ওষুধ খাওয়ার ফলে আপনাদের বিভিন্ন রোগের দেখা দিতে পারে। তাই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। শরীর স্বাস্থ্য ভালো করার জন্য বাহিরের অস্বাস্থ্যকর খাবার এড়িয়ে চলুন। স্বাস্থ্যসম্মতভাবে ঘরোয়া পরিবেশে পুষ্টিকর খাবার খাবেন। আজকের এই পোস্ট থেকে মোটা হওয়ার সহজ উপায় জেনে নিন। প্রাকৃতিক ভাবে মোটা হওয়ার সহজ টিপস জেনে নিন।

 

 

 ১। মোটা হবার জন্য নিয়মিত ব্যায়াম করুন। আমরা অনেকেই মনে করি যে, চিকন হওয়ার জন্য ব্যায়াম করে মানুষ। শরীর স্বাস্থ্য মোটা করার জন্য ব্যায়ামের প্রয়োজন। নিয়মিত ব্যায়াম করুন এবং জিম সেন্টার এর দক্ষ ট্রেইনার এর রুটিন অনুযায়ী খাবার গ্রহণ করুন। জিম করলে শরীর মোটা হবার পাশাপাশি পেশি মজবুত হবে।


মোটা হবার জন্য নিয়মিত ব্যায়াম করুন।


 

 ২। মোটা হওয়ার জন্য নিয়মিত খাবারের সাথে আলু খান। আলু দিয়ে তরকারি রান্না করুন এবং আলুর তরকারি খান। আলুতে রয়েছে প্রোটিন ও ক্যালরি। নিয়মিত সিদ্ধ আলু খাওয়ার অভ্যাস তৈরি করুন। এতে আপনার স্বাস্থ্যের উন্নতি হবে।


মোটা হওয়ার জন্য নিয়মিত খাবারের সাথে আলু খান।

 

৩।  শরীরের ওজন বৃদ্ধির জন্য নিয়মিত ডিম খান। ডিম প্রাণীজ আমিষ জাতীয় খাবার। এতে আছে ফ্যাট, প্রোটিন ও ক্যালরি। যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। প্রতিদিন তিন/চারটা ডিম সেদ্ধ করে ডিমের সাদা অংশ খান। কাঁচা ডিম না খাওয়াই ভালো।

শরীরের ওজন বৃদ্ধির জন্য নিয়মিত ডিম খান।


 

৪। কাঁচা ছোলা শরীরের জন্য খুবই উপকারী। শরীর মোটা করার জন্য প্রতিদিন সকালবেলা কাঁচা ছোলা খাওয়ার অভ্যাস করুন। এতে আপনার স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটবে।

 

৫। মোটা হওয়ার জন্য গরুর মাংস খেতে পারেন। গরুর মাংসের রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট। গরুর মাংস দ্রুত মোটা হতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

 

৬। শরীর স্বাস্থ্যের উন্নতি করার জন্য প্রচুর পরিমাণ শাকসবজি খাওয়ার অভ্যাস করুন। উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার যেমনঃ- কচুর মুখি, মিষ্টি আলু, মিষ্টি কুমড়া,সিম ইত্যাদি দিয়ে তরকারি রান্না করুন এবং বেশি পরিমাণে খান। এতে দ্রুত ওজন বাড়াতে সাহায্য করবে।

 

 ৭। স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে ঘরোয়া ভাবে বেশি বেশি তেল দিয়ে রান্না করা খাবার খেতে পারেন। তেল জাতীয় খাবার দ্রুত ওজন বাড়াতে সাহায্য করে।

 

 ৮। শরীরের ওজন বৃদ্ধির জন্য ফাস্টফুড আইটেম খেতে পারেন। যেমনঃ- পিজ্জা, বার্গার, আইসক্রিম সিংগারা, পেস্ট্রি এগুলো উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার। বেশি বেশি উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার গ্রহণ করলে খুব সহজে ওজন বৃদ্ধি করা যায়।


শরীরের ওজন বৃদ্ধির জন্য ফাস্টফুড আইটেম খেতে পারেন।


 

 ৯। তিন বেলা ভাত খাওয়ার অভ্যাস তৈরি করুন। এতে প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট এবং কার্বোহাইড্রেট রয়েছে।

 

১০।  শরীর মোটা হওয়ার জন্য নিয়মিত বাদাম খেতে পারেন। বাদাম একটি উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার। শরীরের ওজন বাড়াতে বাদাম খুবই উপকারী।

 

পরিশেষে বলা যায় যে, মোটা হবার জন্য আপনাকে টেনশন মুক্ত থাকতে হবে। পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমাতে হবে। সঠিক সময়ে খাবার খেতে হবে। আপনি আগে যে পরিমাণ খাবার খেতেন তার থেকে বেশি খাবার খেতে হবে। অল্প অল্প করে বারবার খাওয়ার অভ্যাস করুন। উচ্চ ক্যালরিযুক্ত খাবার বেশি বেশি খেলে খুব সহজে মোটা হতে সাহায্য করবে।

 

আশা করি বন্ধুরা আজকের এই পোস্ট থেকে মোটা হওয়ার সহজ উপায়। প্রাকৃতিক ভাবে মোটা হওয়ার সহজ টিপস জানতে পেরেছেন। এই পোস্টটি ভালো লাগলে আপনার মতামত কমেন্ট সেকশনে জানিয়ে দিবেন এবং আপনাদের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

 

 ধন্যবাদ

 

*

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post